আমাদের প্রভু মহান আল্লাহ কি আমাকে ভালোবাসেন

ভালোবাসার কত গলপোই তো পৃথিবীতে রয়েছে লাইলি-মজনু শিরি-ফরহাদ ইউসুফ জুলেখা বেক্তিগত জীবনেও আমরা আমাদের ভালোবাসার মানুষটি আমাদের কতটা ভালবাসেন কত পরীক্ষার মাধ্যমেই তো যাচাই করতেই আচ্ছা কখনো কি আমরা এমনটা যাচাই করেছি যে আমাদের সৃষ্টিকর্তা আমাদের প্রভু মহান আল্লাহ কি আমাকে ভালোবাসেন আসুন আজ আমরা যাচাই করব আল্লাহ কি সত্যিই আমাকে ভালোবাসেন আনন্দ যদি আল্লাহ সুবহানাহুওয়া তা’য়ালা কোন ব্যক্তি কে ভালোবাসেন।

লাইলি-মজনু শিরি-ফরহাদ ইউসুফ জুলেখা

তখন তিনি জিবরাঈল আলাইহিস সালামকে ডেকে বলেন আমি এ ব্যক্তিকে অনেক ভালোবাসি এখন তুমি ওকে ভালবাসো ফলের জিবরাঈল আলাইহিস সালাম তাকে ভালোবাসতে শুরু করেন এবং আকাশের অধিবাসীদের ঘোষণা দেন এ ব্যক্তিকে আল্লাহ অনেক ভালবাসেন এখন থেকে তোমরা ওকে ভালবাসো অতঃপর তারা ও তাকে ভালোবাসতে শুরু করেন এরপর মানুষটিকে ভালবাসতে শুরু করে বিশ্বজুড়ে শুরু হয় সেই ব্যক্তির জন্য ভালোবাসার খেলা আর এই পৃথিবীতে সে ভালবাসার শ্রেষ্ঠত্বের অধিকারী ছিলেন।

আমাদের প্রভু মহান আল্লাহ কি আমাকে ভালোবাসেন

হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এটি হচ্ছে কোন মানুষের প্রতি মানুষের ভালোবাসা সৃষ্টি হওয়ার ইসলামী মূলনীতি এমনকি এই মূলনীতির আলোকে আল্লাহ আমাদের প্রতি তার গভীর ভালোবাসা প্রদর্শন করেন মাঝে মাঝে আমরা প্রায়ই মনে মনে নিজেদেরকে প্রশ্ন করি আল্লাহ কি আমাকে ভালোবাসেন সত্যিই কি আল্লাহ জিব্রাইল আলাই সাল্লাম কে বলেন তিনি আমাকে ভালোবাসেন সত্যি আল্লাহ আমাদের ভালোবাসেন বিশ্বাস করুন বান্দার প্রতি আল্লাহর ভালোবাসার নমুনাস্বরূপ কিছু আয়াত আপনাদের সামনে উপস্থাপন করছিঃ সূরা বাকারা।

আল্লাহ বলেন আল্লাহ তাঁর বান্দার সহজযানী তিনি আরো বলেন আল্লাহ মানুষকে সর্বোত্তম গঠনে সৃষ্টি করেছেন আল্লাহ আরো বলেনঃ আল্লাহ আমাদের সর্বোত্তম ভালো চান এবং আমাদের জন্য যা কল্যাণকর তাই তিনি করেন আল্লাহ তার সৃষ্টির ব্যাপারে সর্বোচ্চ. তুলনীয় ভাবে মনোযোগী অন্য একবার আল্লাহর এই ভালোবাসা পেতে হলে আমাদের কি করনীয় কে গৌড় আমাদের থাকতে হবে আর থাকলেও তাকে আমাদের মধ্যে যথেষ্ট পরিমাণে আছে আল্লাহর ভালোবাসা সম্পর্কিত এই ধরনের আরও কয়েকটি প্রশ্নের উত্তরে আমাদের কোন কোন বিষয়ে মনোযোগী হতে হবে তা আজ আলোচনা করছি।

আল্লাহর জন্য আপনাকে ভালোবাসি আরবি

এক আপনি কি সর্বোচ্চ অনুসরণীয় ব্যক্তি রাসুলে পাক সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম কে অনুসরণ করছেন আল্লাহ আমাদের জীবন ধারণ চলাফেরা আধ্যাত্মিক বিষয়ে তার পছন্দের পথ দেখিয়ে দিয়েছেন আর তার দেখানো পথে রাসূলে পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সুন্নত এর পথের অনুসরণ যেখানে আমাদের সর্বোত্তম কল্যাণ নিহিত রয়েছে যারা আল্লাহর প্রেরিত শেষ নবী হুযূর পাক সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এর পথে নিজেদের পরিচালিত করে আল্লাহর পথেই আছে আর আল্লাহ তাদেরকে ভালবাসেন।

যে তার দেখানো পথে চলি হে মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বল যদি তোমরা আল্লাহকে ভালোবাসো তাহলে. অনুসরণ করো আল্লাহ তোমাদের ভালোবাসবেন তিনি তোমাদের গুনাহ মাফ করে দিবেন আল্লাহ সর্বোচ্চ ক্ষমাশীল ও অতি দয়ালু সূরা আলে ইমরান আয়াত 31 তৃতীয়তঃ আপনি সৎ কাজ করতে কতটুকু মনোযোগী আপনি কি মডেলের গাড়ি ব্যবহার করেন তা আল্লাহ দেখবেন না কিন্তু তিনি আপনি কিভাবে রাগ নিয়ন্ত্রণ করেন তারা দেখেন আল্লাহ আপনার বাড়ি কথি টুকু জায়গা জুড়ে আছে তা দেখবেন না কিন্তু দানের ব্যাপারে আপনি কতটুকু মহত্মা।

কিন্তু ঠিকই দেখবেন আল্লাহ আপনার বেতন এর অংকের পরিমাণ দেখবেন না কিন্তু আপনার চরিত্রের পরিমাণ দেখবেন আল্লাহ সৎকর্মশীলদের ভালবাসেন যারা সৎকর্ম অগ্রগামী যেমন সুসময়ে ও দুঃসময়ে দান করে এবং রাগ নিয়ন্ত্রণ করে ও মানুষকে ক্ষমা করে নিশ্চয়ই আল্লাহ সৎকর্মশীলদের ভালোবাসেন আপনি কি ইসলামের উপর অবিচল আপনি দুই কি বিষয়ের মুখোমুখি যেকোনো একটি গ্রহণ করতে হবে বিষয়টি সঠিক কিন্তু অবিচল থাকা কঠিন অথবা বিষয়টি সহজ কিন্তু ভুল আপনাকে অবশ্যই সঠিক বিষয়টি গ্রহ. করতে হবে কঠিন পরিস্থিতিতে সঠিক পথের উপর অবিচল থাকার ক্ষেত্রে আপনাকে ধৈর্য ধরতে হবে।

আল্লাহ বলেছেন তুমি যাকেই আমার চেয়ে বেশি ভালোবাসবে

আপনি ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে একেবারে পরিশ্রান্ত দুর্ভোগের প্রতিষ্ঠায় আপনাকে অবিচল থাকতে হবে হয়তো আপনার জীবন আপনার কাছে মূল্যবান কিন্তু তা কোরবানি করতে হবে আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য কিন্তু আপনাকে ধৈর্যের সাথে লেগে থাকতেই হবে কখনো আল্লাহর দেওয়া দায়িত্বে অবহেলা করতে পারবেন না আল্লাহর ভালোবাসা পেতে হলে ধৈর্য্য ধরুন আল্লাহ ধৈর্যশীলদের ভালোবাসেন সূরা আলে ইমরান 146 নং আয়াত আপনি কি আল্লাহর উপর তাওয়াক্কুল করেন যারা আল্লাহর উপর তাওয়াক্কুল বা ভরসা করে।

তারা যখন ক্ষতিও কষ্টের সম্মুখীন হয় তখন তারা মনে করিয়ে দেয় এটা আল্লাহর পরিকল্পনা যারা আল্লাহকে ভরসা করে তারা বিশ্বাস করে তাদের দোয়া আজ হোক কাল হোক অবশ্যই কবুল হবে যারা আল্লাহর উপর তাওয়াক্কুল করে তারা কখনো আশা হারায় না আল্লাহর ভালোবাসার পাত্র হতে হলে আল্লাহকে দৃঢ় বিশ্বাসী হন নিশ্চয়ই যারা আল্লাহর উপর ভরসা করেন. তাদের ভালোবাসেন আপনি কি ন্যায় পরায়ন যারা ন্যায় পরায়ন তারা কখনো অহংকারবশত অন্যের সাথে ভাষা ও সংস্কৃতির বৈষম্য দেখায় না।

তারা হয়তো কাউকে অপছন্দ করে তবুও তার ন্যায্য অধিকার আদায় করে তারা সত্যের পক্ষে এমনকি এই সত্য তার জন্য ক্ষতিকর হলেও অটুট ভাবে সত্যকেই সমর্থন করে যায় মৃত্যুর আগের দিন পর্যন্ত আল্লাহর ভালোবাসা পেতে নেহের অবস্থানে থাকুন পবিত্র কুরআনে আল্লাহ বলেন নিশ্চয়ই আল্লাহ ন্যায় পরায়ন দের কে ভালোবাসেন আপনি কি অতিরিক্ত কিছু ভালো কাজ করেন রাসূলে পাক সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম এরশাদ করেছেন আল্লাহ বলেন বান্দার উপর আরোপিত ফরজ কাজ আদায় করার মাধ্যমে আমার নিকটে চলে আসে।

আল্লাহর ভালোবাসার আলামত

এছাড়া বান্দা যখন আমার পছন্দনীয় নফল কাজ করে তখন সে আমার আরো অধিক নিকটবর্তী হয় তখন তার গান আমার গান হয়ে যায় যা দিয়ে সে শোনে তার দৃষ্টি আমার দৃষ্টি যা দিয়ে সে দেখে তার হাত আমার হাত হয়ে যায় তার পা আমার পা হয়ে যায় যা দিয়ে সে হাটে সে যা চায় আমি. গীতা দান করি এবং সে যদি সুরক্ষা চায় আমি তাকে সুরক্ষিত করি সহিব হারি আল্লাহ আপনার নফল কাজে খুশি হয়ে বেশি ভালোবাসবেন ফলাফলে বলতে পারি উপরের আলোচ্য অধিকাংশ প্রশ্নের উত্তর যদি আপনার ক্ষেত্রে হা হয় তাহলে আল্লাহর ভালবাসা অর্জনের ক্ষেত্রে আপনার সুযোগ হলো।

আমাদের প্রভু মহান আল্লাহ কি আমাকে ভালোবাসেন

জেনে রাখুন তিনি আপনাকে অবশ্যই ভালোবাসা আপনি এগিয়ে যান এবং আপনার মনে এর সফলতা যেন অন্যের চেয়ে নিজেকে উত্তম ভাবার অনুভূতির না সৃষ্টি করে সেক্ষেত্রে খেয়াল রাখবেন আল্লাহর কাছে দোয়া করি তিনি যেন আপনাকে ভালোবাসেন এবং তার পথে পরিচালিত করেন তাদের জন্য দোয়া করুন আল্লাহর ভালবাসা অর্জনের চেষ্টা করে যাচ্ছে যদিও পুরের অধিকাংশ প্রশ্নের উত্তর আপনার ক্ষেত্রে না হয় তাহলে দোয়া করুন আল্লাহ যেন আমাদের জন্য যা উত্তম তাই করেন এবং তিনি যেন আমাদের হেদায়েত দেওয়ার মাধ্যমে তার ভালোবাসার পাত্র হবার সুযোগ দেন।

যাতে আমরা আমাদের অবস্থান থেকে আরো ভালো হতে পারি যাতে আরো বেশি শান্তিপ্রিয় হতে পারি আমরা এভাবে আল্লাহর কাছে আমাদের জন্য উত্তম কিছু এবং. তোর ভালোবাসা অর্জন করতে দোয়া করব ইনশাআল্লাহ আল্লাহ যেন তার পথে আমাদের অবিচার রাখেন আল্লাহর ভালোবাসা অর্জনে আমাদের পরিপূর্ণতা অর্জন প্রয়োজন নেই তবে যা আমাদের জন্য কল্যাণকর চাইবো তার কাছে তিনি অত্যন্ত ক্ষমাশীল ও প্রেমময় সর্বশেষ একটি হাদিস দিয়ে শেষ করছি।

যদি তুমি আল্লাহর জন্য কিছু ত্যাগ করো

আবু দারদা রাদিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু থেকে বর্ণিত নবী করীম সাল্লাল্লাহু সাল্লাম বলেন তিন ব্যক্তিকে আল্লাহ খুব ভালোবাসেন তাদের প্রতি সন্তুষ্ট হয়ে হাসেন এবং তাদের কারণে খুশি হন প্রথমত সেই ব্যক্তি যার নিকট দলের পরাজয় নিশ্চিত হবার পরেও নিজে তারজান কোরবানি দিয়ে আল্লাহ রাজাবাজারের ওয়াস্তে যুদ্ধ করে শহীদ হয় অথবা আল্লাহ তাকে সাহায্য দান করে বিজয়ী করেন তিনি তাঁর জন্যে যথেষ্ট হন তখন আল্লাহ বলেন আমার এই বান্দাকে তোমরা লক্ষ্য করো আমার জন্য নিজের প্রাণ দিয়ে কেমন ধৈর্য ধরেছে দ্বিতীয়তঃ সেই ব্যক্তি যার আছে সুন্দরী স্ত্রী এবং নরম ও সুন্দর বিছানা।

কিন্তু সে এসব. করে রাত্রে উঠে নামাজ পড়ে এর জন্য আল্লাহ্ বলেন সে নিজের প্রবৃত্তিকে দমন করে আমাকে স্মরণ করছে অথচ ইচ্ছে করলে সে নিদ্রা উপভোগ করতে পারত তৃতীয় সেই ব্যক্তি যে শহরে থাকে তার সঙ্গে থাকে কাফেলা কিছু রাত্রি জাগরন করে সকলে ঘুমে ঢলে পড়ে কিন্তু সেই শেষ রাত্রে উঠে কষ্ট ও আরামের সময় নামাজ পড়ে সুবহানাল্লাহ আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন আমাদের এই তিন জাতের যেকোনো এক ধরনের মানুষ হবার সৌভাগ্য দান করুক আমিন.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *