জানাজার নামাজে রুকু সিজদা না থাকার কারণ গুলো জেনে নিন

জানাজার নামাজের রুকু সিজদা কেন থাকে না ? জানাজার নামাজে রুকু সিজদা না থাকার কারণ গুলো জেনে নিব আজকে পৃথিবীতে মানুষের মতানৈক্যের শেষ নেই কিন্তু শত মতবিরোধ সত্ত্বেও এই বিষয়ে একমত যে মৃত্যু একদিন আসবেই জন্মিলে মরিতে হয় আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন পবিত্র কুরআনে বলেন কুল্লু নাফসিন জাইকাতুল মাউৎ প্রত্যেক প্রাণীকেই মৃত্যুর স্বাদ ভোগ করতে হবে আর এই অমোঘ অপরিবর্তনীয় নিয়মটির ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবাই বিশ্বাস করেন।

জানাজার নামাজের রুকু সিজদা কেন থাকে না

কোন মুসলিমের মৃত্যু হলে তাকে কবরস্থ করা সহ কয়েকটি কাজ করা জীবিত মুসলিমদের কর্তব্য তার মধ্যে গোসল দেওয়া কাফন পরানো জানাজার নামাজ পড়া ইত্যাদি বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য জানাজার নামাজের সওয়াব আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু থেকে বর্ণিত হাদীসে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন যে তোমার পড়া পর্যন্ত জানাজায় উপস্থিত থাকবে তার জন্য একটি উৎসব রয়েছে আর যে ব্যক্তির দাফন করা পর্যন্ত উপস্থিত থাকবে তার জন্য দুই করার সওয়াব রয়েছে জিজ্ঞাসা করা হল ২ ক্রাতের পরিমাণ কতটুকু।

জানাজার নামাজে রুকু সিজদা না থাকার কারণ গুলো জেনে নিন

ইয়া রাসুল আল্লাহ রাসুল পাক সাঃ বলেন দুই বড় পাহাড় পরিমাণ সুবাহানাল্লাহ হাদিস বুখারি হাদিস .১৩২৪ নম্বর। মুসলিম শরীফ হাদিস টি রয়েছে .৯৪৫ নম্বর হাদিস জানাজার নামাজের নিয়ম জানাজার নামাজ এই নামাজ পড়ার নিয়ম হলো ইমাম বৃত্তের বরাবর দাঁড়াবে ইমামের পিছনে মুক্তাদী দিয়ে সাজানো গোছানো কাতার থাকবে সবাই আল্লাহর ইবাদত হিসেবে জানাযার ফরজ আদায়ের নিয়ত করবে এরপর তাকবীরে তাহরীমা বলবে এবং কান পর্যন্ত হাত উঠাবে তারপর ছানা পড়বে অতঃপর তাকদীর বলে দুরুদ পাঠ করবে।

জানাজার নামাজের দোয়া আহলে হাদিস

এই তাকবীরে হাত উঠাবে না তারপর তৃতীয় তাকবীর বলে মৃত ব্যক্তি ও মুসলমানদের জন্য দোয়া করবেন তখন হাত উঠাবে না তারপর চতুর্থ. বলবে কখনো হাত উঠাবে না ইমাম তাকবীর উচ্চস্বরে বলবেন এবং বাকি দোয়া-দুরুদ অনুচ্চস্বরে পড়বেন মুক্তাদিরা সবাই অনুচ্চস্বরে পড়বে অতঃপর ডান ও বাম দিকে সালাম ফিরাবেন সুতরাং জানা গেল যে জানাজার নামাজের রুকু সিজদা নেই এবার আসুন মূল প্রসঙ্গে কথা বলি জানাজার নামাজে রুকু সেজদার না থাকার কারণ এক জানাজার নামাজ মৃত ব্যক্তির পক্ষে শুধু সুপারিশ আর রুকু সিজদার কারণ ও উদ্দেশ্য এর বিপরীত।

কেননা রুকু সিজদায় নিজের সর্বনিম্ন অক্ষমতা ও অপদস্থতা এবং আল্লাহ তাআলার সীমাহীন মর্যাদা বড় তথ্য প্রকাশ করা হয় জানাজার নামাজে আল্লাহ তা’আলার প্রশংসা ও গুনাগুন এবং অন্যদের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করা হয় তাই জানাজার নামাজে রুকু সিজদার বিধান দেওয়া হয়নি দ্বিতীয় কারণটি হচ্ছে জানাজার নামাজ পড়া হয় তার সামনে রেখে যদি অন্য কোন নামাজের মত জানাজার নামাজে রুকু সেজদা করা হয় তাহলে সাধারণ মানুষের মধ্যে এই ধারণা হতে পারে যে লাশের উদ্দেশ্যে।

জানাজার নামাজে ইমাম কোথায় দাড়াবে

বুঝি রুকু সিজদা করা বৈধ সুতরাং উনার সামনে রেখে রুকু-সিজদা করলে শিল্পের সম্ভাবনা থেকে যায় তাই মুসলিম উম্মাহকে শিরকি ধারণা থেকে বাঁচানোর জন্য জানাজার নামাজে রুকু সিজদার বিধান দেওয়া হয়নি সর্বশেষ প্রত্যেক মুসলিম ভাইকে বলতে চাই যে আমার আপনার জানাজার নামাজ টির পূর্বেই জানাজার নামাজের বিধিবিধানগুলো শিখিনি বলাতো যায়না হয়তো যেকোনো মুহূর্তে যে কারো সময় এসে পড়তে পারে এই খাটের একজন যাত্রী আমি-আপনি হয়ে যেতে পারি।

জানাজার নামাজে রুকু সিজদা না থাকার কারণ গুলো জেনে নিন

কিন্তু মনে আক্ষেপ থেকে যাবে যদি এক হাটের বাসিন্দা হওয়ার পূর্বেই জানাজার নামাজের বিধিবিধানগুলো শিখে নিতে না পারি আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন আমাদের প্রত্যেকটি ভাইকে জানাজার নামাজের প্রত্যেকটি বিধি-বিধান বিশুদ্ধভাবে শেখার তৌফিক দান করুন আমিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *