শীতকাল আল্লাহ তাআলার প্রিয় বান্দাদের জন্য বিশেষ নেয়ামত

শীতকাল আল্লাহ তাআলার প্রিয় বান্দাদের জন্য বিশেষ নেয়ামত একজন মুসলিম এতে সহজেই আল্লাহর নৈকট্য লাভ করতে পারে সাহাবা-তাবেয়ীনের নিকট এ মৌসুমের বিশেষ গুরুত্ব ছিল তারা একে এবাদতে ভরা বসন্ত মনে করতেন তিনি আল্লাহর রহমত ও সন্তুষ্টি এ ধরনের কিছু আমলঃ মাসালা তুলে ধরা হলোঃ 1 অধিক পরিমাণে নফল রোজা রাখা বিশেষত বৃহস্পতিবার এবং চন্দ্র মাসের 13 14 ও 15 তারিখে রোজা নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেন শীতকালের রোজা শীতল গনিমত জামে তিরমিজি 797 নং হাদিস।

শীতকাল আল্লাহ তাআলার প্রিয় বান্দাদের

ও বৃহস্পতিবার এবং চন্দ্র মাসের 13 14 ও 15 তারিখের রোজার বিষয়ক সহি বুখারী ও মুসলিমের হাদীস রয়েছে এতে অ্যাকামুলেটদ লাভ করা যাবে ইনশাআল্লাহ্ আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ বর্ণিত তিনি এরশাদ করেন শীতকালকে মারহাবা এতে বরকতের ঝর্ণাধারা বইয়ে যায় রাত দীর্ঘ হয় মূল্যায়নের জন্য দিন ছোট হয় রোজা পালন করার জন্য সুবহানাল্লাহ হযরত ওমর ইবনে খাত্তাব রাদিয়াল্লাহু বলেন শীতকাল মুমিনের গনিমত বসন্ত দীর্ঘরাত তাহাজ্জুতে কাটায় দিন ছোট হওয়ায় রোজায় কাটায় মুসনাদে আহমদ সুনানে বায়হাকী।

শীতকাল আল্লাহ তাআলার প্রিয় বান্দাদের জন্য বিশেষ নেয়ামত

তবে অনেকে হাদীসটিকে সহীহ বলেছেন পবিত্রতা অর্জনের ক্ষেত্রে কয়েকটি বিশেষ গুরুত্বারোপ করা প্রয়োজন এক হচ্ছে পায়ের গোড়ালিতে পানি পৌঁছানোর বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে এ বিষয়ে বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছে এবং কঠিন কথা এসেছে শীতের কারণে অনেক সময় এতে অবহেলা হয়ে যায় হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর রাদিয়াল্লাহু বলেন আমরা মক্কা হতে মদিনা ফিরছিলাম রাস্তায় আমরা পানি পেলে কিছু লোক তাড়াহুড়া শুরু করে দিলো তাড়াহুড়া করে তারাও শরীফ. আমরা পৌছে দেখি তাদের পায়ের গোড়ালি শুকনো তাতে পানি পৌঁছেনি।

ইমান আল্লাহর একটি বড় নিয়ামত ব্যাখ্যা করো

নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম বলেন কিছু পায়ের গোড়ালির জন্য জাহান্নামের শাস্তি তোমরা খুব ভালো ভাবে ওযু করার সহিহ মুসলিম দুইশত 41 নং হাদিস প্রত্যেকটি অঙ্গ যত্নসহ ধোয়া সম্পূর্ণভাবে পানি পৌঁছানোর বিষয়ে সর্তকতা অবলম্বন করা যদিও বছরের অন্য সময়গুলোতেও কাম্য হবে শীতের দিনের গুরুত্ব আরো বেড়ে যায় নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন আমি কি তোমাদেরকে এমন আমলের কথা বলে দিব না যার মাধ্যমে আল্লাহ পাপ মুছে দেবেন এবং জান্নাতের উঁচু করে দিবেন সাহাবাগণ বললেন।

অবশ্যই বলুন ইয়া রসুলুল্লাহ নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন এক কষ্টের ক্ষেত্রে খুব ভালোভাবে অজগরও অধিক পরিমাণে মসজিদের দিকে গমন করা এক নামাজের পর উনুন আমাদের জন্য অপেক্ষা করা সহিঃ মুসলিম 251 হাদিস ইত্যাদির হাতা ভালোভাবে গুটিয়ে নেওয়া অনেকে শীতের কারণে হাতা গুটিয়ে ইউজ করেন. কোন সূত্র থেকে গেলে তো হবে না তাছাড়া কনুইটাকে ইত্যাদির উপরিভাগ সহ দোয়া অধিকাংশ ইমামগনের মত মুস্তাহাব সহিঃ মুসলিম শরীফে বর্ণিত হয়েছে।

আল্লাহর সবচেয়ে প্রিয় বান্দা

মুসলিম রহমত উল্লাহ বলেন আমি আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু কে ওযু করতে দেখলাম তিনি মুখমন্ডল ধৌত করলে খুব ভালভাবে ধৌত করলে তারপর ডান হাত ধৌত করলে আর কিছু অংশসহ তারপর বাম হাত ধৌত করলেন বাহুর কিছু অংশসহ এরপর মাথা মাসেহ করলেন অতঃপর ডান পা ধৌত করলে আর কিছু অংশসহ অতঃপর বাবা বললেন নলার কিছু অংশসহ এরপর তিনি বলেন আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে কিভাবে ইউজ করতে দেখেছি সহিমুসলিম 246 নং হাদিস চাপাচাপি করে রাখার প্রবণতা পরিহার করতে হবে।

শীতকাল আল্লাহ তাআলার প্রিয় বান্দাদের জন্য বিশেষ নেয়ামত

এটি স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর অপরদিকে এই শীতকালে একটি বেশি হয়ে থাকে নামাজের মান অনেক কমিয়ে দেয় হযরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু বলেন আমি নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি খাবারের. ঈদের নামাজ নিয়ে এবং মলমূত্রের ব্যাক চেপে রাখা অবস্থায় নামাজ নেই সহিঃ মুসলিম 560 নো হাদীস হযরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু বলেন নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন আল্লাহ ও আখিরাতের প্রতি বিশ্বাসী কোন মুমিনের জন্য বৈধ নয়।

আল্লাহ তার বান্দাকে কেমন ভালবাসেন

মলমূত্রের ব্যাক চেপে রাখা অবস্থায় তার না করে নামাজ আদায় করা একেবারে নিষিদ্ধ সুনানে আবু দাউদ হাদিস নং 91 এ ক্ষেত্রে কয়েকটি ভুল ধারণা রয়েছে যেমন ওজুর পর রুমাল দিয়ে হাতমোজা এর কারণ এসব রাস পাবে হযরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু বলেন রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর একটি কাপড়ের টুকরো ছিল যা দ্বারা ওযুর পর তিনি হাত পা মুছে নিতে প্রচন্ড শীতে পানি ব্যবহারে অক্ষম হলে তায়াম্মুম করা যাবে তবে সেটি মনে রাখতে হবে এখন তোদের জন্যই প্রযোজ্য হবে।

কেননা যুবকরাও যদি প্রচন্ড শীতে তায়াম্মুম করা শুরু করে দেয় সেক্ষেত্রে ইসলামিক বিশেষজ্ঞদের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে পবিত্রতা অর্জনের গরম পানি ব্যবহার করলে কোন সমস্যা নেই. সব রাস পাবে না ইনশাআল্লাহ.।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *