মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স কি ও ইনসুরেন্স করার নিয়ম

মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স কি ও ইনসুরেন্স করার নিয়মঃ বর্তমান আধুনিক প্রযুক্তির যুগে মানুষের চলাচল বা যাতায়াতের জন্য প্রিয় ও অন্যতম বাহন হচ্ছে মোটরসাইকেল। আমরা যখন রাস্তায় মোটরসাইকেল চালাতে যাই তখন নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। যেমন, দূর্ঘটনা, ট্রাফিক পুলিশ, মোটরসাইকেল চোর ইত্যাদি।

এসব সমস্যা থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য মোটরসাইকেল ইনসুরেন্সের প্রয়োজন অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এখন আপনার মনে প্রশ্ন হলো মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স কি? চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স কি ও ইনসুরেন্স থাকার উপকারিতা।

মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স কি?

আমরা প্রায় অনেকেই নিজের দৈনন্দিন যাতায়াতের জন্য মোটরসাইকেল ব্যবহার করে থাকি। মোটরসাইকেলে যাতায়াতের কথা মানে আমাদের মনে নানা ধরনের দূর্ঘটনার কথা মনে পড়ে। অনেক সময় রাস্তায় বের হলে নিজের চোখের সামনেই নানা ধরনের দূর্ঘটনা দেখতে পারি।

প্রায় বেশির ভাগ দূর্ঘটনার পর তৎক্ষনাৎ মোটরসাইকেল আরোহীকে জরিমানা প্রদান করতে হয় বা পুলিশের কাছে সমাপর্ন করা হয়। অপ্রত্যাশিত দূর্ঘটনার জন্য যদি আপনার প্রিয় বাইকের ক্ষতি হয় তাহলে আপনার হতাশা আরো বেড়ে যায়।

মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স কি ও ইনসুরেন্স করার নিয়ম (1)

এরকম অপ্রত্যাশিত দূর্ঘটনার ক্ষেত্রে ইনসুরেন্সের গুরুত্ব অতুলনীয়। আপনার অপ্রত্যাশিত দুর্ঘটনার কারনে মোটরসাইকেলের ক্ষতি হলে মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স কোম্পানি তার ব্যয়ভার বহন করবে। এক্ষেত্রে আপনাকে কোনো টাকা ব্যয় করতে হবে না । মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স কিভাবে করতে হয় তা অনেকের অজানা। আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো কিভাবে মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স করতে হয়।

মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স করার নিয়ম

আপনার প্রিয় মোটরসাইকেলটির Complayensib Moto Insurance করা থাকে। তবে দূর্ঘটনার ক্ষেএে আপনার কোনো টাকা ব্যয় করতে হবে না। আপনাকে মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স কোম্পানির অফিসে গিয়ে মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স করতে হবে।

আপনাকে মোটরসাইকেলের সমস্ত কাগজপত্র সঙ্গে নিয়ে যেতে হবে। যদি আপনার এলাকায় মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স কোম্পানির অফিস না থাকে সেক্ষেত্রে আপনাকে মোটরসাইকেল বিক্রয় প্রতিষ্ঠান সাহায্য করবে। আপনি সেখানেও মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স করতে পারবেন।

আরো দেখুনঃ

তবে আপনার কাছে এই সব কার্যকলাপ ঝামেলা বা বিরক্তিকর হতে পারে। তাই এই সব ঝামেলা থেকে এড়িয়ে যেতে অনলাইনের মাধ্যমে ঘরে বসেই মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স করতে পারবেন।

কিভাবে অনলাইনের মাধ্যমে মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স করা যায় ?

১. আপনার কম্পিউটার বা মোবাইলের যেকোনো Browser এ www. Nitilinsurance. com লিখে সার্চ করেন।

২. এবার নতুন পেজ আসার পর Online Motor Insurance বাটনে ক্লিক করেন। এখানে আপনার মোটরসাইকেলের সব বিবরণ দিতে হবে। যেমন, রেজিষ্ট্রেশন ফরম, বাইক ক্রয়ের ক্যাশ মেমো, মূল্য সংযোজন করের রশিদ, ট্রেজারি চালানপএ, ইন্জিন ও সেচিস নাম্বার, নিজের জাতীয় পরিচয় পএের ফটোকপি ইত্যাদি।

৩. বিবরণ দেওয়ার পর Payment বাটনে ক্লিক করেন। এখানে আপনি কিভাবে পেমেন্ট করবেন তার অনেক অবশন থাকবে। যেমন, Mobile Banking, Credit Card, Debit Card, Bkash ইত্যাদি। আপনার সুবিধা মতো যেকোনো একটি সিলেক্ট করেন। এবারে আপনাকে একটি Conformation মেসেজ পাঠানো হবে।

৪. আপনার অনলাইনের সমস্ত প্রক্রিয়ার তথ্যবলি আপনার Gmail এ পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

৫. আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে আপনার ঠিকানায় Insurance এর কপি কুরিয়ারে পৌঁছে দেওয়া হবে।

উপরের নিয়ম গুলো ভালো করে ফলো করলে আপনি নিজেই ঘরে বসে মোটরসাইকেলের ইনসুরেন্স করতে পারবেন।

মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স থাকার সুবিধা গুলো জেনে নিন

একজন মোটরসাইকেল আরোহীর জন্য ইনসুরেন্স থাকা অনেক প্রয়োজনীয় বিষয়। আমরা অনেকেই ভাবি যে, শুধু মাএ পুলিশের মামলা থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য মোটরসাইকেল ইনসুরেন্সের ব্যবহার করে থাকি। আপনাদের এই ধারনা সম্পূর্ণ ঠিক নয়।

Work men’s Compensation Act 1923 And Fatal Accident Act 1885 এর আইন অনুযায়ী ইনসুরেন্সকারী মালিককে অপ্রত্যাশিত দুর্ঘটনার ক্ষতি পূরণ প্রদান করতে হবে। নিযুক্ত মোটরসাইকেল ইনসুরেন্সকারী ড্রাইভার ছাড়া অন্য কেউ দূর্ঘটনার স্বীকার হলে ক্ষতি পূরণ দিতে হবে এবং তাদের বয়স ১৬ থেকে ৬৫ বছর হতে হবে।

আপনার মোটরসাইকেল ইনসুরেন্সের জন্য আপনার প্রিয় মোটরসাইকেলটির কোনো ধরনের অগ্নিকান্ড,চুরি, দাঙ্গা, ধর্মঘট, ইত্যাদি কার্যকলাপ থেকে আপনাকে সম্পুর্ন নিরাপত্তা দিয়ে থাকবে।

এছাড়াও কখনো আপনার ব্যাটারী ডিসচার্জ, অভ্যন্তরীন সমস্যা, চাবি নিখোঁজ, টায়ার ফাটা ইত্যাদির ক্ষেত্রে সহযোগিতা করবে।

মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স করতে কত টাকা লাগবে ?

Complayensib Moto Insurance মোটরসাইকেল ইনসুরেন্সের জন্য ১০০০০ টাকা খরচ হয়। এই নিয়ম গুলো সব বীমা কোম্পানির ক্ষেত্রে একই ।

তবে 3rd party insurance করতে খরচ ২২০ থেকে ২৬০ টাকা পর্যন্ত লাগতে পারে । অধিকাংশ মোটরসাইকেল চালক এই ইনসুরেন্স করে থাকেন। এই ক্ষতি পূরণ ও বীমার টাকা বাংলাদেশ সরকারি বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তপক্ষ নির্ধারন করে।

মোটরসাইকেল ইনসুরেন্সের মেয়াদ কত দিন পর্যন্ত থাকে ?

মোটরসাইকেল ইনসুরেন্সের মেয়াদ সাধারণত ১ বছরের জন্য করা হয়ে থাকে। বাংলাদেশ সরকার বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের ইনসুরেন্সের নীতি অনুযায়ী মোটরসাইকেল ইনসুরেন্সের মেয়াদ ১ বছর করা হয়েছে। তবে আপনি মোটরসাইকেল ইনসুরেন্স রেজিষ্ট্রেশনের মেয়াদ ১ বছর পর পর নবায়ন করা যাবে।

আশা করি, আপনারা উপরের তথ্য গুলো ভালো করে ফলো করলে মোটরসাইকেল ইনসুরেন্সের সমপর্কে মোটামুটি ধারণা পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *